গুহার ভাঁজে মহাকাব্য 

খাড়া পাহাড়ের সামনে ছুটন্ত রথ। তাতে মহাভারতের কৃষ্ণ। যেনো এইমাত্র বেরিয়ে এলেন পাহাড়ের পেট থেকে। তার রথের সামনে পাথরে খোদাই গীতার উপোদেশ। পেছনের গুহায় কচ্ছপের বাড়িয়ে রাখা গলার মতো সরু প্রবেশ পথ। অসংখ্য খাঁজ বহুভূজ গুহার দেওয়াল-ছাদে অগণিত তাক তৈরি করে রেখেছে। প্রতিটি পাথুরে তাক যেনো সযতনে গড়া প্রাকৃতিক মিউজিয়ামের গ্যালারি। কোথাও কোথাও মাথা নুইয়ে মসৃণ মেঝের সঙ্গে মিতালি গড়তে চাইছে নিরেট ছাদ। নদীর...